'উইমেন অন্ট্রপ্রিনিয়রস সামিট ২০১৯'
News Date : 10/25/2019 12:00:00 AM   |  Publish : 11/29/2019 2:05:58 AM

'উইমেন অন্ট্রপ্রিনিয়রস সামিট ২০১৯'
উইমেন অন্ট্রপ্রিনিয়রস অফ বাংলাদেশ - উইবিডির উদ্যোগে এবং ইভ্যালির সৌজন্যে বাংলাদেশে প্রথম বারের মতো আয়োজিত হলো 'উইবিডি উইমেন অন্ট্রপ্রিনিয়রস সামিট ২০১৯'। ২৫ শে অক্টোবর, শুক্রবার রাজধানীর জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি যাদুঘরে উক্ত অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। উইমেন অন্ট্রপ্রিনিয়রস সামিট ২০১৯ এ প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন তিনা এফ জাবিন- ইনভেস্টমেন্ট এডভাইজার, স্টার্টআপ বাংলাদেশ, আইসিটি ডিভিশন, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ব্যারিস্টার সায়েদ সায়েদুল হক সুমন, প্রসিকিউটার, ইন্টারন্যাশনাল ক্রাইমস ট্রাইব্যুনাল, ইকবাল বাহার জাহিদ, ডিরেক্টর অপটিম্যাক্স কম্যুনিকেশন লিমিটেড এবং ফাউন্ডার, নিজের বলার মতো একটি গল্প।
অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন উইমেন অন্ট্রপ্রিনিয়রস অফ বাংলাদেশ - উইবিডির চেয়ারপার্সন শারমিন আকতার (সাজ)।

২০৩০ সালের মাঝে ২১,০০০ জন উদ্যোক্তা সৃষ্টির লক্ষ্য নিয়ে এগিয়ে চলেছে উইবিডি । তারই ধারাবাহিকতায় উদ্যোক্তা পেশায় বিভিন্ন চ্যালেঞ্জ সহ নারী উদ্যোক্তাদের স্বীকৃতি, সম্মান, অনুপ্রেরণা যোগাতে এবং উদ্যোক্তাদের বিভিন্ন সমস্যা ও সম্ভাবনা তুলে ধরতেই আয়োজিত হয়েছে 'উইমেন অন্ট্রপ্রিনিয়রস সামিট ২০১৯' তথা উইবিডি নারী উদ্যোক্তা শীর্ষ সম্মেলন ২০১৯। নারী উদ্যোক্তাদের প্রচার প্রসার ও তাদের মাঝে একটি শক্তিশালী সেতুবন্ধন গড়ে তুলতে গ্রুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে এই সামিট। সমগ্র বাংলাদেশ থেকে আগত প্রায় দুইশত জন নারী উদ্যোক্তা অংশগ্রহণ করেন এই সামিটে।

অন্ট্রাপ্রিনিয়রশীপ অনেক সম্ভাবনাময় একটা সেক্টর। এটা এমন একটা পেশা যেটা কেবল তার নিজের কর্মসংস্থান করে না বরং তার মাধ্যমে অন্যদেরও কাজের সুযোগ তৈরি করে দেয়। প্রযুক্তি এবং নিজের মেধাকে কাজে লাগিয়ে শুধু চাকুরীর উপর নির্ভরশীল না হয়ে নিজেদের দক্ষ উদ্যোক্তা হিসেবে গড়ে তুলছেন তারা। অনেকেই এর মাঝে নিজেকে নিয়ে গিয়েছেন সফলতার শীর্ষ শিখরে। তথ্য-প্রযুক্তি সেবা, ই-কমার্স, এফ-কমার্স, অফলাইন বিক্রেতা, স্বাস্থ্য সেবা, ট্যূরিজম, ক্যাটারিং, ম্যানুফ্যাকচারিং, স্বতন্ত্র উদ্যোক্তা সহ বিভিন্ন খাতে কাজ করছে নারীরা।

মূলত নারী উদ্যোক্তাদের ব্যাবসার প্রচার-প্রসার সহ তাদের কাজ ও সফলতাকে স্বীকৃতি দেয়াই 'উইমেন অন্ট্রপ্রিনিয়রস অফ বাংলাদেশ- উইবিডির মূল লক্ষ্য। উক্ত সামিটের মাধ্যমে দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে আগত উদ্যোক্তা গন জমায়েত হয়েছেন এই সামিটে। উদ্যোক্তাগন বিভিন্ন সেশন, বিশেষজ্ঞ গনের কাছ থেকে দিক নির্দেশনা ও মত বিনিময়, এঞ্জেল ইনভেস্টরদের সাথে সাক্ষাত ও সফল উদ্যোক্তাদের সাথে মতবিনিময় এবং সেই সাথে নিজেদের ব্যবসাকে বিটুবি ও বিটুসি এর মাধ্যমে আরো সামনে এগিয়ে নিয়ে যাবার সুযোগ পেয়েছেন এই সামিটে।

অন্ট্রপ্রিনিয়রশীপ সেক্টরের অপার সম্ভাবনা তুলে ধরা এবং নারী উদ্যোক্তাদের নিয়ে আরো একধাপ এগিয়ে যাওয়াই ছিলো উইমেন অন্ট্রপ্রিনিয়রস সামিট - ২০১৯ এর মূখ্য উদ্দেশ্য। উইমেন অন্ট্রপ্রিনিয়রস সামিট ২০১৯ এর এই আয়োজনে ৭জন নারী অর্জন করেন উইমেন অন্ট্রপ্রিনিয়রস এওয়ার্ড । এওয়ার্ড প্রাপ্ত নারী উদ্যোক্তাদের মাঝে রয়েছেন তাসলিমা গিয়াস, জিনিয়া রহমান, ফারহানা রহমান, হাজেরা পারভিন সুমা, তাবেরুননেসা জয়িতা, নুসরাত আকতার এবং আফরোজা নাজনীন।

উইমেন অন্ট্রপ্রিনিয়রস সামিট ২০১৯ এর টাইটেল স্পন্সর হিসেবে ছিলো ইভ্যালি, গোল্ড স্পন্সর হিসেবে বিডি বাজেট বিউটি এবং সিলভার স্পন্সর হিসেবে ছিলো একশন এইড। এছাড়াও সেশন ও ইভেন্ট পার্টনার হিসেবে ছিলো এটুআই, একশপ, আইসিটি ডিভিশন, ইউএনডিপি, ক্যাপ্টেন হলিডেজ লিমিটেড, ক্রেকারি, রেজিস্ট্রো, মিডিয়া পার্টনার দি পেজেস এবং স্ট্রাটেজিক ও ডেকোরেশন পার্টনার হিসেবে ছিলো বিনফোসিস।

উইমেন অন্ট্রপ্রিনিয়রস সামিট ২০১৯ এর এই আয়োজনের বিভিন্ন সেশনে স্পীকার হিসেবে উপস্থিত ছিলেন একশন এইড এর প্রজেক্ট কোওর্ডিনেটর শওকত আকবর ফকির, পাওয়ার অফ শী এর প্রজেক্ট চীফ সাবিনা সাবি, ইমরাজিনা খান - ইমরাজিনা টেকনোলজিস এর কো ফাউন্ডার। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন মিউজিসিয়ান ইমরান হোসেন, এটুআই প্রকল্পের একশপ থেকে সায়েলা কাদের, ইফফাত ই ফারিয়া, তাবেরুন নেসা জয়িতা, টিনকার জান্নাত মীম, আরাফাতুল হক আকিব, ফাহরিন হান্নান, তাওহিদা শিরোপা সহ প্রমুখ। সারাদিন ব্যাপী জমকালো নানা আয়োজন শেষে স্টার্টআপ বাংলাদেশ এর প্রজেক্ট কোওর্ডিনেটর জনাব মুজিবুল হক উক্ত অনুষ্ঠানের সমাপনী ঘোষণা করেন।